Headlines
Loading...
General science gk in bengali | সাধারণ বিজ্ঞান জিকে 2

General science gk in bengali | সাধারণ বিজ্ঞান জিকে 2

General science gk in bengali | সাধারণ বিজ্ঞান জিকে

এই প্রশ্ন সেট-এ General science gk থেকে সমস্ত রকম সম্ভাব্য প্রশ্ন ও উত্তর নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এখানে রয়েছে general science gk in bengali সম্পর্কিত 150+ general knowledge question answers in bengali, যেগুলি পশ্চিমবঙ্গে যে কোনো সরকারি পরীক্ষার WBCS, SSC, WBP, ICDS, RAIL,RRB GROUP D And others competitive exams এর জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এই 150র ও বেশি প্রশ্ন উত্তর এর মধ্যে আপনি পাবেন General science qna in Bengali আরও রয়েছে general science gk bengali PDF, জেনারেল সাইন্স বা সাধারণ বিজ্ঞান  সম্পর্কিত প্রশ্ন উত্তর General Knowledge About general science PDF In Bengali, and general science quiz in bengali etc. 

এটি আমাদের general science question set series er 2nd question set, নীচে যান বাকি সেট গুলি দেখার জন্য।

প্রঃ বিটা ন্যাপথল তৈরি করতে কোন্ কোন্ রাসায়নিক পদার্থ অত্যাবশ্যক?

উঃ () কস্টিক সোডা, () সালফিউরিক অ্যাসিড, () সোডিয়াম কার্বোনেট এবং () সল্ট

প্রঃ ব্যাটারী প্রস্তুত করতে কোন্ কোন্ যন্ত্রপাতি অবশ্যই প্রয়োজনীয়?

উঃ () বোর্ড-পেস্ট-পাইপ মেকিং মেশিন-1টি, () জিঙ্ক-টিউব-স্ক্রু মেশিন-1টি, () এস. এস. প্যান-1টি এবং () বলমিল 1টি (ছোট মাপের)

প্রঃ ড্রাই ব্যাটারী তৈরি করতে ব্যবহৃত রাসায়নিক পদার্থগুলি কয়টি ভাগে বিভক্ত কি কি?

উঃ 2টি () ডিপোলারাইজিং পেস্ট এবং () সেটিং ইলেকট্রোলাইট পাউডার

প্রঃ বিটা ন্যাপথল তৈরি করতে কোন্ কাঁচামাল প্রচুর ব্যবহৃত হয়?

উঃ হটপ্রেস্ত-ন্যাপথলিন

প্রঃ ড্রাই ব্যাটারিতে প্রথম পর্যায়ে কোন্ কোন্ দ্রব্য কি কি পরিমাণে ব্যবহৃত হয়?

উঃ প্লাস্টার অব প্যারিস-7 কেজি, ময়দা-2.5, কেজি, স্যাল অ্যামোনিয়াক 1.25 কেজি, জিঙ্ক ক্লোরাইড-1.25 কেজি

প্রঃ ড্রাই ব্যাটারী প্রস্তুত করতে দ্বিতীয় পর্যায়ে কোন্ কোন্ দ্রব্য কি কি পরিমাণে ব্যবহৃত হয়?

উঃ কার্বন 12 কেজি, ম্যাঙ্গানিজ ডাই অক্সাইড 12.5, কেজি, জিঙ্ক ক্লোরাইড-1 কেজি, অ্যামোনিয়াম ক্লোরাইড-2.25

প্রঃ ন্যাপথলিন উৎপাদনে অবশ্যই প্রয়োজনীয় পদার্থ কোন্টি?

উঃ কোক আভন

প্রঃ বিটা ন্যাপথল বহুল পরিমাণে ব্যবহৃত হয় কোন্ কাজে?

উঃ সিন্থেটিক রবার উৎপাদন ডাইস স্টাফে

প্রঃ কালি তৈরির ক্ষেত্রে দ্বিতীয় পর্বে কি করতে হয়?

উঃ পৃথক পৃথক পাত্রে তৈরি করা উক্ত সল্যুউশনগুলোকে একটি বড় কাচের জারে ঢেলে ভালো করে মিশ্রণ তৈরি করতে হবে এবার তাতে একএক করে পরিমাণমতো কার্বোলিক অ্যাসিড, হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড, গদ দিয়ে ঘন ঘন ঘন নাড়তে হবে।

প্রঃ নেল পালিশ তৈরি করতে কোন্ কোন্ উপাদান ব্যবহৃত হয়?

উঃ (ক) সেলোলাইড ফিল্ম বা স্ট্র্যাপ্ ফিল্ম, (খ) স্কারলেট রং, (গ) অ্যাসিটোন, (ঘ) অ্যামিলসিটেট।

প্রঃ লেখার কালি তৈরির প্রাথমিক পর্ব বর্ণনা কর?

উঃ 1 লিটার জলকে ঈষদুষ্ণ করে নিয়ে চারটি কাচের বিকারে ঢালতে হবে। তারপর এক একটিকে পরিমাণ মতো ট্যানিক অ্যাসিড, গ্যালিক অ্যাসিড ফেরাস সালফেট এবং ইঙ্ক পাউডার ঢেলে পৃথক সল্যুউশন তৈরি করতে হবে।

প্রঃ নেল পালিশ তৈরি করতে সেলোলাইড ফিল্ম বা স্ক্র্যাপ্ কতটুকু পরিমাণে ব্যবহার করতে হয়?

উঃ ৪ গ্রাম (ছোট ছোট টুকরো)।

প্রঃ লেখার কালি তৈরি করতে ব্যবহৃত প্রয়োজনীয় কাঁচামালগুলি কি কি?

উঃ (ক) ট্যানিক অ্যাসিড-5 গ্রাম, (খ) গ্যালিক অ্যাসিড-10 গ্রাম, (গ) ফেরাস সালফেট-10 গ্রাম, (ঘ) ইঙ্ক পাউডার-10 গ্রাম, (ঙ) কার্বোলিক অ্যাসিড-10 সি.সি., (চ) হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড-10 সি.সি., (ছ)গাদ-10 গ্রাম, (জ) ম্যাথিলেটেড স্পিরিট-15 সি.সি. এবং (ঝ) পাতিত জল-1 লিটার।

প্রঃ নেল পালিশ তৈরি করতে ব্যবহৃত অ্যাসিটোন, অ্যামিল অ্যাসিটেট এবং রং এর পরিমাণ কি?

উঃ অ্যাসিটোন-50 সি.সি., অ্যামিল অ্যাসিটেট-55 সি.সি. এবং স্কারলেট রং পরিমাণ মতো।

প্রঃ লিকুইড সোপ তৈরির পদ্ধতি বর্ণনা কর?

উঃ সবার আগে একটি কাচের বিকারে 100 গ্রাম ডিস্টিল ওয়াটার ও 25 গ্রাম কস্টিক সোডা দিয়ে সল্যুউশন তৈরি করে নিতে হয়। তারপর একটি কড়াই উনুনে চাপিয়ে গরম হলে তাতে পরিমাণ মতো পাম ওয়েল, লিন্‌সিড অয়েল ও ক্যাস্টর ওয়েল ঢেলে দিতে হবে। কড়াইয়ের দ্রবণ ফুটতে শুরু করলে কড়াইটি উনুন থেকে নামাতে হবে। একটু ঠাণ্ডা হলে তাতে কস্টিক সোডার সল্যুউশন ঢেলে একটি কাচদণ্ড দ্বারা ভালোভাবে নাড়তে হবে। তারপর বাকী জলটুকু ঢেলে তার মধ্যে রেজিন মিশিয়ে ঘন না হওয়া পর্যন্ত নাড়তে হবে।

প্রঃ লিকুইড সোপ তৈরি করতে পাম অয়েলের পরিবর্তে ব্যবহৃত অন্য তেলটি কি?

উঃ বাদাম তেল

প্রঃ ফিনাইল তৈরির পদ্ধতি বর্ণনা কর?

উঃ প্রথমে কাচের পাত্রে 300 ঘনত্ব বিশিষ্ট কস্টিক সোডার সল্যুউশন তৈরি করে নিতে হবে তারপর উনুনে কড়াই বসিয়ে 200 গ্রাম রজন দিয়ে গলিয়ে নিতে হবে এর পর উনুনে কড়াই বসিয়ে 200 গ্রাম রজন দিয়ে গলিয়ে নিতে হবে 40 মিলি ক্যাস্টর অয়েল তাতে দিয়ে খুক্তি দ্বারা নেড়ে কড়াইটিকে উনুন থেকে নামিয়ে কস্টিক সোডার সল্যুউশানটুকু ঢেলে ঘন ঘন নেড়ে দ্রবণটুকু ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে এরপর কড়াইটিকে উনুনে চাপিয়ে প্রথমে 300 গ্রাম ক্রিয়োজেট অয়েল এবং তিন-চার মিনিট পর 100 মিলি জল (200 মিলি কস্টিক সল্যুউশনে ব্যবহৃত হয়েছে) দিতে হবে এরপর পাঁচ থেকে ছয় মিনিট ফুটিয়ে ফিনাইলের নিজস্ব রঙ (কালচে খয়েরী) এলে কড়াইটিকে নামাতে হবে

প্রঃ কালিতে ম্যাথিলেটেড স্পিরিট কখন দেওয়া হয়?

উঃ তৈরি কালিকে অন্ততঃ 15 দিন রেখে দিলে বর্জ্য পদার্থ থিতিয়ে পাত্রে তলায় জমা হয় তারপর ফিল্টার পেপার দিয়ে ছেঁকে ম্যাথিলেটেড স্পিরিট দেওয়া হয়

প্রঃ লিকুইড ফিনাইল তৈরি করতে কোন্ কোন্ উপাদান ব্যবহৃত হয় পরিমাণ কি?

উঃ ক্যাস্টর ওয়েল-40 মিলি, () ক্রিয়োজেটে ওয়েল-300 গ্রাম, () কস্টিক সোডা প্রায় 50 গ্রাম (30° ঘনত্ব বিশিষ্ট সল্যুউশন তৈরি করে), () রজন-200 গ্রাম, () কার্বোলিক অ্যাসিড-10 সিসি, () পটাসিয়াম পারম্যাঙ্গানেট- 15 গ্রাম এবং () জল-1200 মিলি

প্রঃ কালিকে কিভাবে বিভিন্ন রং বিশিষ্ট করা হয়?

উঃ ইঙ্ক পাউডার যে রং বিশিষ্ট হবে কালিও সে রং বিশিষ্ট হয়

প্রঃ ব্লিচিং পাউডার কোন্ কোন্ কাজে বহুল পরিমাণে ব্যবহৃত হয়?

উঃ জীবাণুনাশক দ্রব্য হিসাবে, বস্ত্রশিল্পে বস্ত্র ধৌত করার কাজে

প্রঃ ব্লিচিং পাউডার তৈরি করতে প্রয়োজনীয় সরঞ্জামগুলি কি কি?

উঃ মাঝারি মাপের লোহার চেম্বার-1টি, লম্বা হাতলযুক্ত কাঠের হাতা-4টি, কাঠের বড় ট্রে-15-16টি

প্রঃ ব্লিচিং পাউডার তৈরি করতে কোন্ কোন্ কাঁচামাল ব্যবহার করা হয় পরিমাণ কত?

উঃ চুন-4 কেজি, () জল-350 মিলি, () ক্লোরিন গ্যাস-70 ঘন সেমি

প্রঃ ব্লিচিং পাউডার তৈরির প্রধান কাজ কি?

উঃ চূর্ণকে যথাযথভাবে ক্লোরিন গ্যাস অ্যাক্জরব্ করানো

প্রঃ ব্লিচিং পাউডার কার কার মিশ্রণে প্রস্তুত করা হয়?

উঃ চুন ক্লোরিন গ্যাসের মিশ্রণে

প্রঃ ব্লিচিং পাউডার তৈরি করতে কোন্ চুন ব্যবহৃত হয়?

উঃ পাথুরে (ঢেলা) চুন

প্রঃ ক্লোরিন গ্যাস পাস (pass) করানোর সময় তার উত্তাপের পরিমাণ কত হওয়া উচিত?

উঃ ৪০° সেন্টিগ্রেডের বেশি নয়

প্রঃ কপার সালফেটের ব্যবহারিক প্রয়োজনীয়তা কি?

উঃ কৃষির কীটনাশক ওষুধ, ইস্পাত শিল্পে, ওষুধ শিল্পে, রসায়নাগারে, কাগজ শিল্পে, রং শিল্পে, কালি তৈরির শিল্পে, রবার শিল্পে, বস্ত্র শিল্পে, চর্ম শিল্পে এবং গাছপালা সংরক্ষণের কাজে, সার্জিক্যাল কাজ ব্যান্ডেজ তৈরিতে প্রয়োজন হয়

প্রঃ অনেক সময় ট্রেনের চালক গাড়িটিকে সচল করার জন্য ট্রেনটিকে কিছুটা পেছনের দিকে চালায় কেন?

উঃ ট্রেনের কামরাগুলির সংযোগস্থল আলগা না হয়ে টান টান অবস্থায় থাকে তবে চালকের পক্ষে ট্রেনটিকে সচল করা কঠিন হয়ে পড়ে অবস্থায় চালকের পক্ষে ট্রেনটিকে সচল করা কঠিন হয়ে পড়ে অবস্থায় চালককে এরকম কোন বল প্রয়োগ করতে হবে যাতে সমগ্র ট্রেনটিতে একই সঙ্গে ত্বরণ সৃষ্টি সম্ভব হয় ট্রেনটিকে সামান্য পেছনের দিকে ঠেলে দিলে বগিগুলির মধ্যবর্তী সংযোগ গুলি আলগা হয়ে যায় তারপর ইঞ্জিনটি চালু করলে প্রথমে ট্রেনের সামনের অংশ সচল হয় পরে ক্রমে পেছনের অংশও গতিশীল হতে আর বাধা থাকে না

প্রঃ ফিনাইল কার্বোলিক অ্যাসিড পটাসিয়াম পারম্যাঙ্গানেট কখন ব্যবহার করা হয়? এর কারণ কি?

উঃ ফিনাইল প্রায় ঠাণ্ডা হয়ে এলে অধিক উষ্ণতা কার্বোলিক অ্যাসিড পটাসিয়াম পারম্যাঙ্গানেটের তেজস্ক্রিয়তা (জীবাণুনাশক ক্ষমতা) হ্রাস পায়

প্রঃ কপার সালফেট তৈরি করতে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতিগুলির নাম লেখ?

উঃ () ফারনেস, () লেড লাইন্ড ইভাপরেটার, () লেড লাইন্ড ট্যাঙ্ক, () ক্রিস্টালাইজার, () কাঠের গামলা, () ইস্পাতের তৈরি ছাঁকুনি

প্রঃ সলিড ফিনাইল তৈরি করতে কোন্ কোন্ কাঁচামাল কি কি পরিমাণে ব্যবহৃত হয়?

উঃ উপরে বর্ণিত লিকুইড ফিনাইল তৈরি করতে সেসব কাঁচামাল তাদের পরিমাণ ব্যবহৃত হয় সলিড ফিনাইল তৈরি করতেও একই কাঁচামাল পরিমাণ ব্যবহৃত হয় এতে 1200 মিলি জলের পরিবর্তে 1000 মিলি জলের প্রয়োজন হয়

প্রঃ কপার সালফেট তৈরি করতে কোন্ কোন্ উপাদান অপরিহার্য?

উঃ সালফিউরিক অ্যাসিড তামার পাত (ক্র্যাপ কপার)

প্রঃ সলিড ফিনাইল কোন ঋতুতে তৈরি করা সম্ভব নয়?

উঃ বর্ষায় (আর্দ্র আবহাওয়ায়)

প্রঃ হোয়াইট সেন্টেড ফিনাইল তৈরি করতে কোন্ কোন্ দ্রব্য কি কি পরিমাণে ব্যবহৃত হয়?

উঃ জল 2000 সি.সি., ক্যাস্টর অয়েল 100 গ্রাম, স্পাইক ল্যাভন্ডার 5 সি.সি., 15 গ্রাম কস্টিক সোডা (জেলের সাহায্যে সল্যুউশন তৈরি করে), পাইন অয়েল 125 গ্রাম

<< আগের পোস্ট | পরবর্তী পোস্ট >>

 

0 Comments: